Tuesday , 22 January 2019

দারুণ জয়ে সিরিজ শুরু টাইগারদের

ঘরের মাঠে দারুণ খেলে বাংলাদেশ। সেটি প্রমাণ করতে আরও একটি জয় উপহার দিল মাশরাফিরা। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বড় জয় দিয়েই ত্রিদেশীয় সিরিজ শুরু করেছে টিম বাংলাদেশ। বোলিং, ফিল্ডিং ও ব্যাটিংয়ে সমান নৈপুণ্য দেখিয়েই জয় তুলে নিয়েছে স্বাগতিকরা।

সোমবার মিরপুর শেরেবাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে জিতেছে মাশরাফি বাহিনী। এদিন হাফ সেঞ্চুরি তুলে নিয়েছেন তামিম ইকবাল। দারুণ ব্যাট করেছেন সাকিব। অনেক দিন পর দলে ফেরা বিজয়ও ভাল খেলার ইঙ্গিত দিয়েছেন।

তামিম ৮৪, সাকিব ৩৭, বিজয় ১৯ ও মুশফিক ১৪ রান করেছেন। জিম্বাবুয়ের হয়ে দুটি উইকেট নিয়েছেন সিকান্দার রাজা।

এর আগে ত্রিদেশীয় ওয়ানডে সিরিজের উদ্বোধনী ম্যাচে মিরপুর শেরে-বাংলা স্টেডিয়ামে টস জিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুর্দান্ত সূচনা করে টাইগাররা। প্রথম ওভার থেকেই চমক দেখিয়েছেন সাকিব-মাশরাফিরা। টাইগারদের বোলিং তোপে ১৭০ রানেই অল আউট হয়ে যায় টিম জিম্বাবুয়ে।

দিনের শুরুতে ফিল্ডিংয়ে নেমে প্রথম ওভারেই জোড়া আঘাতে সোলোমন মায়ার (০) ও ক্রেইগ আরভিনকে (০) সাজঘরে পাঠান সাকিব। ইনিংসের প্রথম বলেই মায়ারকে মুশফিকুর রহিমের গ্লাভসবন্দি করে ব্রেকথ্রু এনে দেন সাকিব। পরে সাব্বির রহমানের ক্যাচে পরিণত হন আরভিন।

শুরুতেই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে জিম্বাবুয়ে। অনেকটা দেখেশুনেই ব্যাটিং শুরু করেন অভিজ্ঞ ওপেনার হ্যামিল্টন মাসাকাদজা ও ব্রেন্ডন টেইলর। তবে বোর্ডে বড় সংগ্রহ তোলার আগেই জিম্বাবুয়ে শিবিরে আঘাত হানেন অধিনায়ক মাশরাফি। ২৪ বলে ১৫ রান করে মুশফিকের গ্লাভসবন্দি হন মাসাকাদজা।

পরে টেইলরকে ফেরান মুস্তাফিজ। ৪৫ বলে ২৪ রান করে মুশফিকের ক্যাচে পরিণত হন তিনি। এরপরই জিম্বাবুয়ের ব্যাটিংলাইনআপে আঘাত হানেন সানজামুল। তার ঘূর্ণিতে ম্যালকম ওয়ালার ৩০ বলে ১৩ রান করে সাব্বির রহমানের ক্যাচে পরিণত হন।

রান আউটের মাধ্যমে বিদায় নেন সফরকারীদের হাল ধরা সিকান্দার রাজার। ৯৯ বলে দুই চার ও দুই ছক্কায় দলীয় সর্বোচ্চ ৫২ রান করে বিদায় নেন তিনি। পরে রুবেল হোসেনকে ক্যাচ দিয়ে ব্যক্তিগত ১২ রানে বিদায় নেন দলটির অধিনায়ক গ্রায়েম ক্রেমার। তাকে ফিরিয়ে ব্যক্তিগত তৃতীয় উইকেট শিকার করেন সাকিব আল হাসান।

এরপর দলীয় ১৬৭ রানেই ব্যক্তিগত ৩৩ রান করা পিটার মুর ও ব্যক্তিগত শূন্য রানে চাতারাকে বোল্ড করে সাজঘরে পাঠান রুবেল। আর মুজারাবানিকে বোল্ড করে জিম্বাবুয়ের শেষ উইকেটের পতন ঘটান মুস্তাফিজুর রহমান।

Leave a Reply