Saturday , 20 January 2018

মোবাইল টাওয়ার শেয়ারিং নীতিমালায় রক্ষা পাবে পরিবেশ

দেশে বর্তমানে যত্রতত্র গড়ে উঠছে মোবাইল টাওয়ার। পরিবেশ বিজ্ঞানীরা বলছেন, এসব টাওয়ারে প্রাকৃতিক ভারসাম্য নষ্ট হচ্ছে, মানবশরীরে বাসা বাঁধছে নানা রোগ। তবে নবনিযুক্ত ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার টেলিযোগাযোগে টাওয়ার শেয়ারিং নীতিমালার চূড়ান্ত অনুমোদন দেয়ায় এ অবস্থা বদলাবে বলে মনে করছেন খাত সংশ্লিষ্টরা। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) সচিব সরওয়ার আলম দাবি করেছেন, নীতিমালার অনুমোদনের পর পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার পাশাপাশি সুবিধা হবে ফোর-জি নেটওয়ার্কেও।

নীতিমালার বিষয়ে বিটিআরসি সচিব প্রিয়.কমকে বলেন, বিদ্যমান টাওয়ারগুলোর সমন্বয় করাটা সময়সাপেক্ষ ব্যাপার। তবে নতুন যে কোম্পানিগুলো টাওয়ার শেয়ারিংয়ের কাজ করবে, তারাই ধীরে ধীরে এগুলো সমন্বয় করবে। এ ছাড়াও নতুন নীতিমালা অনুযায়ী, টাওয়ার শেয়ারিংয়ের বিরাট সুবিধা পাওয়া যাবে ফোর-জি নেটওয়ার্কে। তিনি বলেন, চেষ্টা থাকবে অল্প টাওয়ারের মাধ্যমে বহুবিধ ব্যবহার নিশ্চিত করা।

মোবাইল টাওয়ারে ক্ষতিকর রেডিয়েশনের বিষয়টি উল্লেখ করে সচিব বলেন, প্রাকৃতিক ভারসম্য এবং প্রাণীকুলের প্রজনন ব্যাহত হয় এই রেডিয়েশনে। আর এখন ধীরে ধীরে এগুলো সিস্টেমে আসবে এবং পরিবেশবান্ধব হবে।

৪ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে প্রথম অফিস করে টাওয়ার শেয়ারিং লাইসেন্স নীতিমালার চূড়ান্ত অনুমোদন দেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মোস্তাফা জব্বার । এ নীতিমালা চূড়ান্ত করতে ২০১৬ সালে খসড়া টেলিযোগাযোগ বিভাগে পাঠিয়েছিল বিটিআরসি।

টাওয়ার শেয়ারিং লাইসেন্স নীতিমালা নিয়ে মন্ত্রী জানিয়েছেন, অপারেটররা যত্রতত্র যেভাবে খুশি টাওয়ার তৈরি করছে। এক ভবনে পাঁচ থেকে ছয়টি টাওয়ারও হয়েছে,যেগুলো ক্ষতিকর। শেয়ারিং চমৎকার বিষয় যাতে কোম্পানিগুলোর নিজেদের অবকাঠামো তৈরি করতে হবে না।

টাওয়ার শেয়ারিংয়ের জন্য চারটি কোম্পানিকে লাইসেন্স দেওয়া হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

বর্তমানে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান টেলিটকসহ ছয়টি অপারেটরের মোবাইল ফোনের টাওয়ারের সংখ্যা ২৭ হাজারের বেশি।

মোবাইল ফোন টাওয়ারের রেডিয়েশন নিঃসরণ নিয়ে ২০১২ সালে হাইকোর্টে আবেদন করে পরিবেশবাদী ও মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পীস ফর বাংলাদেশ (এইচআরপিবি) । তাদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত বেশি মাত্রায় রেডিয়েশন নিঃসরণের বিষয়টি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দেন।

২০১৭ সালের ২৩ মার্চ বাংলাদেশে মোবাইল ফোন কোম্পানির টাওয়ার থেকে নিঃসৃত রেডিয়েশনের মাত্রা উচ্চ পর্যায়ের এবং তা জনস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর বলে সরকারি এক প্রতিবেদনে বলা হয়।

collected

Leave a Reply